ভ্রমণবিনোদন

মথুরা বৃন্দাবন ভ্রমন গাইড, Latest

মথুরা বৃন্দাবন ভ্রমনঃ আপনারা যারা ভ্রমণ করতে ভালো বাসেন মথুরা বৃন্দাবন ভ্রমন গাইড তাদের ভ্রমণের জন্য উপযোগী স্থান হতে পারে। নিম্নে মথুরা বৃন্দাবন ভ্রমন গাইড নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা যেমন- কীভাবে যাবেন, কোথায় থাকবেন, গুগল ম্যাপ ইত্যাদি।

মথুরা উত্তর ভারতের উত্তরপ্রদেশের একটি বিখ্যাত শহর। এই শহর আগ্রা থেকে কমবেশি ৫০ কিমি উত্তরে এবং দিল্লী থেকে ১৪৫ কিমি দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থিত। উত্তরপ্রদেশের মথুরা জেলার প্রশাসনিক কেন্দ্র এই মথুরা। প্রাচীন কালে এই শহর ছিল অন্যতম অর্থনৈতিক কেন্দ্র।

এটিও পড়ুন – ভারতের দর্শনীয় স্থান সমূহ কোন রাজ্যে কী কী

আর বৃন্দাবন হল মথুরা জেলার অন্তর্গত একটি শহর। ঈশ্বর পরম রাধামাধব এখানে নিজেদের সচ্চিদানন্দ ছেলেবেলার লীলা প্রকাশ করে থাকেন । শহরটি ঈশ্বর পরম রাধামাধবের ভূ লোকের লীলা ভূমি। জেলাসদর মথুরা থেকে ১১ কিলোমিটার দূরে আগ্রা-দিল্লি হাইওয়ের (২ নং জাতীয় সড়ক) উপর অবস্থিত। বৃন্দাবন শহরে রাধা ও কৃষ্ণের অনেকগুলি মন্দির আছে। হিন্দু ধর্মের বৈষ্ণব সম্প্রদায়ের কাছে এটি একটি পবিত্র তীর্থস্থান।

মথুরা বৃন্দাবন ভ্রমন গাইড

শ্রীকৃষ্ণের জন্মভূমি হল মথুরা। বেদে মথুরার কথা উল্লেখ্য না থাকলেও রামায়ণ-মহাভারত ও পৌরাণিক যুগে যথেষ্ট প্রসিদ্ধি পেয়েছে। মউজপুর, মধুপুরী, মধুবন, মধুরা, মদুরা-যুগে যুগে বিভিন্ন নাম বদলে হয়েছে শ্রী কৃষ্ণের জন্মভূমি মথুরা। বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের কাছেও মথুরা একটি বিশিষ্ট জনপদ। এখনেই রাজকুমার উপগুপ্ত বৌদ্ধধর্ম গ্রহণ করেন এবং পরবর্তীকালে সম্রাট অশোককে মথুরাতেই বৌদ্ধধর্মে দীক্ষা দেন।

কেশব দেও মন্দির, মথুরা
কেশব দেও মন্দির, মথুরা [ছবি – উইকিপিডিয়া]

কীভাবে যাবেন মথুরা বৃন্দাবনঃ

ট্রেন যোগাযোগঃ শিয়ালদহ বা হাওড়া ষ্টেশন থেকে আগ্রা যাবার সরাসরি ট্রেনের মধ্যে রয়েছে উদ্যান আভা তুফান এক্সঃ। মথুরা আসার ও যাওয়ার জন্য কোন কোন ট্রেন রয়েছে তার লিস্ট পাবেন এখান থেকে

বাস যোগাযোগঃ আগ্রা থেকে দিল্লি যাবার অনেক বাস রয়েছে। আগ্রার ঈদগাহ বাস স্ট্যান্ড এবং আগ্রা ফোর্ট বাস থেকে আধ ঘণ্টা থেকে একঘণ্টা অন্তর অন্তর দিল্লি যাবার বাস ছারে। এই বাসে দেড় ঘণ্টার মধ্যে মথুরা পৌঁছে যাবেন (৫৮ কিমি)।

কোথায় থাকবেনঃ

মথুরায় অনেক ধর্মশালা রয়েছে। চাইলে কমখরচের ও মধ্যমানের হোটেলে থাকতে পারেন, সেগুলি বেশির ভাগই মথুরা ক্যান্টনমেন্ট (MG) স্টেশনের এবং পুরানো বাস স্ট্যান্ডের অনেকটা কাছাকাছি রয়েছে।

ধর্মশালাঃ
থাকার জন্য মথুরায় হোটেলের চেয়ে ধর্মশালার সংখ্যাই বেশি। নিম্নে কয়েকটি ধর্মশালার নাম দেওয়া হল, ইচ্ছা করলে নিম্নক্ত ধর্মশালাগুলিতে থাকতে পারেন।

  • শ্রী কিশোরী রমণজি ধর্মশালা
  • আগরওয়াল ধর্মশালা
  • ধর্মশালা-গুজরাটি
  • কলকাতাওয়ালি ধর্মশালা

হোটেলঃ

বৃন্দাবনে গিয়ে হোটেলে থাকতে চাইলে, নিম্নক্ত হোটেলগুলিতে থাকতে পারেন।

  • রাহি টুরিস্ট বাংলো (২৪০৭৮২২)
  • আগ্রা হোটেল (২৪০৩৩১৮)
  • গৌরব গেস্ট হাউস (২৫০২৭৭২)
  • অনলাইনে হোটেল বুকিং করতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

কী দেখবেনঃ

দ্বারকাধীশ মন্দির, শ্রীকৃষ্ণ জন্মভূমি মন্দির,  কনস্‌কিলা বা কংসের দুর্গ, গীতা মন্দির, জামা মসজিদ, গভর্নমেন্ট মিউজিয়াম, বলভদ্র কুণ্ড, সরস্বতী কুণ্ড, পোট্রা কুণ্ড, শিবতাল, বৃন্দাবনের পথে পাগলা বাবা মন্দির,
ভুতেশ্বর মন্দির, গোকর্নেশ্বর মন্দির, রঙ্গেশ্বর মন্দির, পিপ্লেশ্বর মন্দির, যমুনা বাগ, গুরুগোবিন্দ সিং – এর স্মৃতি বিজড়িত গুরুদোয়ারা, জৈন সিদ্ধক্ষেত্র চৌরাশিয়া ( শেষ জৈন কৈবল্যজ্ঞানী শ্রী জম্মুস্বামীর তপস্যাস্থল)।

কী খাবেনঃ
মথুরায় রাবড়ি, পেঁড়া, খাজা ও পেঠা ভালো পাওয়া যায়।

গুগল ম্যাপ মথুরা – বৃন্দাবন

এটিও পড়ুন – কান্তজীউ মন্দির এর জানা অজানা

প্রয়োজনীয় তথ্য ও ফোন নম্বরঃ

ডিস্ট্রিক্ট হসপিটাল – ২৪০৩০০৬, ডি এম – ২৪০৪১৫২, এস পি – ২৪০৫১৭২, বাসস্ট্যান্ড – ২৪০৬৪৬৮, রেলওয়ে ষ্টেশন – ২৪০৫৮৩০, ১৩১, ১৩৫, ট্যুরিস্ট অফিস – ২৫০৫৩৫১।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button