জীবনী

মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী

ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী বা পরিচিতি : এই পোষ্টে বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সংক্ষিপ্ত জীবনী সুপ্রিয় পাঠক পাঠিকা এবং বন্ধুদের জন্য শেয়ার করা হল। বিভিন্ন ক্ষেত্রে মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী খুবই কাজে আসে।  স্বাস্থ্য সম্বন্ধীয় প্রয়ােজনীয় কথা সকলের জানা উচিত নিয়ে এর আগে আলোচনা করা হয়েছে চাইলে দেখে নিতে পারেন। নিম্নে মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী আলোচনা করা হল।

মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী

স্বামী বিবেকানন্দ:

জন্ম ১২.১.১৮৬৩ কলকাতার সিমুলিয়ায় এবং মৃত্যু ৪.৭.১৯০২। তিনি মেট্রোপলিটন স্কুলের শিক্ষক। ব্ৰথম সমাজের একনিষ্ঠ সদস্য। শ্রীরামকৃষ্ণের স্নেহধন্য শিষ্য। ১৮৮৬ খ্রিস্টাব্দে বরানগর মঠ প্রতিষ্ঠা করেন। সন্ন্যাস নেওয়ার পর তাঁর নাম হল বিবেকানন্দ। তাঁর প্রকৃত নাম নরেন্দ্রনাথ দত্ত।

তিনি ১৮৯৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসে শিকাগাে অনুষ্ঠিত ধর্ম মহাসভায় বক্তৃতা করে আলােড়ন সৃষ্টি করেন। নিবেদিতা মার্গারেট নােবেল তাঁর শিষ্যত্ব গ্রহণ করেন। ১৮৯৭ খ্রিস্টাব্দে ১ মে রামকৃষ্ণ মিশন ও ১৮৯৯ খ্রিস্টাব্দে বেলুড় মঠ প্রতিষ্ঠা করেন। মানবসেবা এই মিশনের মূল আদর্শ। তাঁর লেগা বিখ্যাত গ্রন্থ ‘পরিত্রাজক, ‘ভাববার কথা, ‘বর্তমান ভারত, ‘প্রাচ্য ও পাশ্চাতা, ‘Karmayoga’, Raja Yoga’, ‘Neo Hinduism’ ইত্যাদি ।

ভূপেন্দ্রনাথ দত্ত

(জন্ম ৪.৯.১৮৮০, মৃত্যু ২৫.১২.১৯৬১) তিনি একজন দেশপ্রেমী, স্বামী বিবেকানন্দের কনিষ্ঠ ভ্রাতা ও বিপ্লবী। ১৯০৯-১০ খ্রিস্টাব্দে আমেরিকায় যান। ১৯১৫ খ্রিস্টাব্দে দেশে ফিরে কংগ্রেসের সঙ্গে যুক্ত হন। পরবর্তীকালে মার্কসবাদে উদ্বুদ্ধ হন। তাঁর লেখা গ্রন্থ হল—ভারতীয় সমাজ পদ্ধতি, ডায়েলেকটিক্স অব ল্যান্ড ইকনমিক্স অব ইন্ডিয়া।

হেনরি লুই ভিভিয়ান ডিরােজিও:

(জন্ম ১০.৪.১৮০৯ এবং মৃত্যু ২৩.১২.১৮৩১)। বিশিষ্ট অ্যাংলাে ইন্ডিয়ান শিক্ষাব্রতী। একজন কবি ও সাংবাদিক। তিনি নিজেকে ভারতীয় বলে পরিচয় দিতেন। জুভেনিস’ ছদ্মনামে বিভিন্ন প্রবন্ধ ও কবিতা লেখেন। তাঁর লেখা বিখ্যাত কাব্যগ্রন্থ হল পােয়েমস এবং ফকির অব জংখিরা। তাঁর প্রেরণায় নব্যবঙ্গ (Young Bengal) আন্দোলনের জন্ম হয়।

জ্যোতিরিন্দ্রনাথ ঠাকুর :

তাঁর জন্ম ৪.৫.১৮৪৯ এবং মৃত্যু ৪.৩.১৯২৫ তারিখে। তিনি একজন সেতার শিল্পী ছিলেন এবং অঙ্কনবিদ্যা, ফরাসি ও মারাঠি ভাষা ইত্যাদি বিষয়ে পারদর্শী। ১৮৬৯ খ্রিস্টাবদে ব্রহ্মসমাজের সম্পাদক হন। তাঁর সাহিত্য রসের মধ্যে উল্লেখযােগ্য হল ‘পুরুবিক্রম’, ‘সরােজিনী ইত্যাদি।

গগনেন্দ্রনাথ ঠাকুর:

জন্ম ১৮.৯.১৮৬৭ তারিখে জোড়াসাঁকো, কলকাতায় এবং মৃত্যু ১৪.২.১৯৩৮। তিনি বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী ও স্থপতি। ইন্ডিয়ান সোসাইটি ফর ওরিয়েন্টাল আর্ট ও বেঙ্গল হােম ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসােসিয়েশন প্রতিষ্ঠা করেন।

কেরামতুল্লা খাঁঃ

তিনি প্রখ্যাত সরােদবাদক হিসাবে সুপ্রতিষ্ঠিত। ১৯১৫ খ্রিস্টাব্দে তিনি কলকাতা সংগীত সংঘের প্রধান যন্ত্রসংগীত শিক্ষকপদে নিযুক্ত হন।

দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশ :

(৫.১১.১৮৭০ এবং মৃত্যু ১৬.৬.১৯২৫) তিনি বিশিষ্ট নেতা ও ব্যারিস্টার আলিপুর যড়যন্ত্র মামলার আসামী অরবিন্দ, বারীন ঘােষ ইত্যাদির পক্ষ সমর্থনে ব্যারিস্টার ও দেশপ্রেমিক রূপে প্রভূত খ্যাতি অর্জন করেন। তাঁর অসামান্য ত্যাগের ফলে মানুষ তাঁকে দেশবন্ধু উপাধিতে ভূষিত করেন। তিনি স্বরাজ্য দলের প্রতিষ্ঠাতা, ১৯২১ খ্রিস্টাব্দে আইন অমান্য করে কারাবর করেন।

রাধাকান্ত শিকদারঃ

(জন্ম ১৮১৩ এবং মৃত্যু ১৭.৫.১৮৭০) গণিতজ্ঞ ও বৈজ্ঞানিক। তিনিই প্রথম এভারেস্ট শৃঙ্গটি জরিপ করেন।

শিবরাম চক্রবর্তীঃ

(জন্ম ১৩.১২.১৯০৩ এবং মৃত্যু ২৮.৮.১৯৮০) খ্যাতনামা সাহিত্যিক ও সাংবাদিক। তিনি হাসির রাজা হিসাবেও সমধিক পরিচিতি লাভ করেন। তাঁর লেখা প্রথম কাব্য গ্রন্থ হল-মানুষ। তিনি শরৎচন্দ্রের দেনা পাওনা উপন্যাসের নাট্যরূপ দেন।

ছবি বিশ্বাসঃ

জন্ম ১৩.৭.১৯০০ এবং মৃত্যু ১১.৬.১৯৬২। তিনি অভিনেতা হিসাবে সুপরিচিত। ১৯৩৬ খ্রিস্টাব্দে ‘অন্নপূর্ণার মন্দির ছবিতে প্রথম আত্মপ্রকাশ। তাঁর অভিনীত বিখ্যাত ছবি-দেবী, জলসাঘর, চোখের বালি এবং কাবুলিওয়ালা।

গোবর গুহঃ জন্ম ১৩.৩.১৮৯২ এবং মৃত্যু ৩.১.১৯৭২ তারিখে। গােবর গুহর আসল নাম যতীন্দ্রচরণ। তিনি বিশিষ্ট কুস্তিগীর। ১৯২১ খ্রিস্টাব্দে তিনি বিশ্ব লাইট হেভিওয়েট চ্যাম্পিয়ান আখ্যা লাভ করেন।

নলিনী দাশঃ

জন্ম ৫.৮.১৯১৬ এবং মৃত্যু ২৩.৩.১৯৯৩। তিনি বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও শিশু সাহিত্যিক। সন্দেশ’ পত্রিকার অন্যতম সম্পাদক। তাঁর লেখা গ্রন্থগুলি হল—“গােয়েন্দা গন্ডালু ও রঙ্গলগড়ের রহস্য।

প্রিন্স দ্বারকানাথ ঠাকুরঃ

জন্ম ১৭৯৪ কলকাতা, জোড়াসাঁকো এবং মৃত্যু ১.৮.১৮৬৪ তারিখে। বাংলার প্রথম যুগের শিল্পপতি।

১০০ + মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী আলোচনা, জেনে রাখুন মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী

গিরিশচন্দ্র ঘােষঃ

জন্ম ২৮.২.১৮৪৪, মৃত্যু ৮.২.১৯১২। বাংলা নাট্যজগতের খ্যাতনামা নাট্যকার, অভিনেতা, কবি। “বিষবৃক্ষ’, “মৃণালিনী’, ‘দুর্গেশনন্দিনী’, ‘মেঘনাদবধ কাব্য’ ইত্যাদি কাব্যের নাট্যরূপ দেন। উল্লেখযােগ্য নাটক-জনা, প্রফুল্ল, দক্ষযজ্ঞ, সিরাজউদদৌল্লা। তিনি শ্রীশ্রী রামকৃষ্ণের পদস্প্শ লাভ করেছেন।

অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুরঃ

জন্ম ৭.৮.১৮৭১ জোড়াসাঁকো এবং মৃত্যু ৫.১২.১৯৫১ তারিখে কলকাতায় ভারতীয় চিত্রাঙ্কন রীতি পুনরুদ্ধার আন্দোলনের নেতা। শেষ লেখা কাটুম-কুটুম। এটি তাঁর পরিণত মনের পরিচায়ক। কাহিনীকার ও প্রাবন্ধিক হিসাবে জনপ্রিয়। তাঁর লেখা কাব্যগ্রন্থ বুড়াে আংলা’, ‘রাজকাহিনী’, ক্ষীরের পুতুল।

অক্ষয়কুমার বড়ালঃ

জন্ম ১৮৬০, চোরবাগান কলকাতায়। মৃত্যু ১৯.৬.১৯১৯ তারিখে। এই কনি রবীন্দ্রনাথের সমসাময়িক ছিলেন। তাঁর কাব্যরচনার মধ্যে নিজস্ব সুর ও ভঙ্গির স্পর্শ আছে। তাঁ লেখা কাব্যগ্রন্থ হল-কনকাঞ্জলি’, ‘এষা’, ‘শ’, ‘প্রদীপ’, ‘ভুল’।

আশুতােষ মুখােপাধ্যায়ঃ

স্যার আশুতােষ মুখােপাধ্যায়ের জন্ম ১৮৬৪ সালের ২৯ জুন এবং মৃত্ু ২৫ মে ১৯২৪। প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ স্যার’ ও ‘বাংলার বাঘ’ আখ্যায় ভূষিত। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নতিকল্পে এই উপাচার্যের অবদান অপরিসীম।

কালীপ্রসন্ন কাব্যবিশারদঃ

জন্ম ৯.৬.১৮৬১ তারিখে এবং মৃত্যু ৪.৭.১৯০৭ তারিখে। তিনি কবিতা কাব্যগ্রন্থ ইত্যাদিতে পারদর্শী এবং বিভিন্ন পত্রিকার সম্পাদক। তাঁর লেখা বিখ্যাত গ্রন্থ হল-লাঞ্ছিতে সম্মান ও ‘পেনেল প্রসঙ্গ।

রাধাকান্ত দেব:

জন্ম ১০.৩.১৭৮৩ এবং মৃত্যু ১৯.৪.১৮৬৭ তারিখে। বাংলাদেশে হিন্দু পুনরুজ্জীবনের প্রবক্তা। হিন্দু কলেজের প্রধান পৃষ্ঠপােষক ও প্রতিষ্ঠাতা। কলিকাতা স্কুল বুক সােসাইটি সম্পাদক। বাংলাদেশে শবব্যবচ্ছেদ ও টীকার বিরুদ্ধে যে সংস্কার প্রচলিত ছিল তার জন্য জনম গঠন করেন ও বিকাশের চেষ্টা করেন।

বিনয় ঘােষ :

(জন্ম ১৪.৬.১৯১৭, মৃত্যু ২৫.৭.১৯৮০) কলকাতা। সমাজবিজ্ঞানী, সাহি সমালােচক, লােকসংস্কৃতি ও বাংলা ভাষার গবেষক এবং গ্রন্থ রচয়িতা। ১৯৫১ সালে রবীন্দ্র পুরস্ লাভ।

ধীরেন্দ্রনাথ বসু :

(জন্ম ১৮৮২ এবং মৃত্যু ১৯৫৩) তিনি খ্যাতনামা সরােদ শিল্পী। বাংলা সরােদবাদনের নতুন ধারার প্রবক্তা।

প্যারিচরণ সরকার :

(জন্ম ২৩.১০.১৮২৩, মৃত্যু ৩০.৯.১৮৭৫) চোরবাগান কলকাতা। তিনি খ্যাতনামা শিক্ষক ও অধ্যাপক। তিনি বাংলা নবজাগরণে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেছিলেন। তিনি স্ত্রীশিক্ষা প্রচারে একাধিক বিদ্যালয় স্থাপন করেন।

নিখিল বন্দ্যোপাধ্যায় :

(জন্ম ১৪,১০.১৯৩১ এবং মৃত্যু ২৭.১.১৯৮৬ খ্রিস্টাব্দে) তিনি প্রখ্যাত সেতারবাদক ; পদ্মশ্রী ও সংগীত নাটক আকাদেমি পুরস্কারে ভূষিত।

মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরঃ

(জন্ম ১৫.৫.১৮১৭ এবং মৃত্যু ১৯.১.১৯০৫ জোড়ার্সাকো) কলকাতা তত্ত্ববােধিনী সভার প্রতিষ্ঠাতা। ব্রিটিশ ইন্ডিয়ান অ্যাসােসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক। ব্রাহ্মসমাজের প্রধান ও ব্ৰসংগীতের রচয়িতা। গ্রন্থ জ্ঞান ও ধর্মের উন্নতি, পরলােক ও মুক্তি, আয়জীবনী। মহর্ষি উপাধিতে ভূষিত।

সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়ঃ

স্যার সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম ১৮৪৮ সালে ১০ নভেম্বর এবং মৃত্যু ১৯২৫ সালে ৬ আগস্ট। তিনি কলকাতার প্রথম রাজনৈতিক বন্দি ও অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক নেতা। ইন্ডিয়ান অ্যাসােসিয়েশনের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। তাঁর রচিত নেশন ইন মেকিং এ্রনটি রাজনৈতিক ইতিহাসের মূল্যবান দলিল এবং তিনি বঙ্গভঙ্গ আন্দোলনের প্রধান নেতা।

হেমেন্দ্রকুমার রায়ঃ

তাঁর জন্ম ১৮ ৮৮ খ্রিস্টাব্দে এবং মৃত্যু ১৯৬৩ খ্রিস্টাব্দের ১৮ এপ্রিল। তিনি বিশিষ্ট সাহিত্যিক ও গীতিকার। তিনি ছােটো-বড়াে সবার জন্য গ্রন্থ রচনা করেন। তাঁর উল্লেখযোগ্য। রচনা ‘জয়ন্তের কীর্তি, “আবার বাঘের বন, “কিং কং, বেনােজল, ঝড়ের ছাতি।

হেমন্তকুমার বসু :

জন্ম ১৮৯৫ খ্রিস্টাব্দের ৫ অক্টোবর এবং মৃত্যু ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দের ২০ ফেব্রুয়ারি। হেমন্তকুমার বসু অনুশীলন সমিতির সদস্য। তিনি অজাতশত্রু নামে পরিচিত। তাঁর মৃত্যু হয় একদল যুবকের হাতে। তিনি সুভাষচন্দ্রের সঙ্গে রাজনীতিতে যুক্ত ছিলেন। ১৯৩৯ খ্রিস্টাব্দে ফরােয়ার্ড ব্লকের কেন্দ্রীয় প্রাদেশিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক হন। ১৯৪৬ খ্রিস্টাব্দ থেকে মৃত্যু পর্যন্ত বিধানসভার সদস্য ছিলেন।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর :

(জন্ম ৭ মে ১৮৬১। জোড়াসাঁকো, কলকাতা এবং মৃত্যু ৭ আগস্ট ১৯৪১)। তিনি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের পুত্র। বিশ্বভারতী কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপাচার্য এবং তিনি গীতাঞ্জলি কাব্যের জন্য নােবেল পুরস্কার পান।

মলিনা দেবীঃ

(জন্ম ১৯১৪, মৃত্যু ১৯৭৭ খ্রিস্টাব্দের ১৩ আগস্ট)। তিনি প্রচুর চলচ্চিত্র ও নাটকে অভিনয় করেন। তাঁর প্রথম সবাক ছবি চিরকুমার সভা। তিনি দুশােটিরও বেশি ছবিতে অভিনয় করেছেন।

বিমল মিত্র :

(জন্ম ১৮.৩,১৯১২, কলকাতা ; মৃত্যু ২.১২.১৯৮১)। প্রখ্যাত ঔপন্যাসিক, প্রথম উপন্যাস—ছাই। এছাড়া কড়ি দিয়ে কিনলাম’, “সাহেব বিবি গােলাম’ ইত্যাদি উপন্যাস রচনা করেন।

সেরা মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী, ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী

সাগর সেন :

(জন্ম ১৫.৫.১৯৩২, মৃত্যু ৪.১.১৯৮৩) প্রখ্যাত রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী। তার ১০০-এরও বেশি গানের রেকর্ড আছে।

সত্যজিৎ রায় :

(জন্ম ২.৫.১৯২১, মৃত্যু ১৩.৪.১৯৯২)। জন্ম কলকাতায়। প্রখ্যাত সাহিত্যিক ও চিত্রপরিচালক। জটায়ু ও ফেলুদার স্রষ্টা। প্রথম ছবি পথের পাঁচালী ; অস্কার পুরস্কার প্রাপক। লিজিয়া অব অনার, ভারতর-, দেশিকোত্তম, দাদা সাহেব ফালকে উপাধিতে ভূষিত।

সমর সেনঃ

(জন্ম ১০,.১০,১৯১৬, মৃত্যু ২৩.৮.১৯৮৭)। প্রখ্যাত কবি ও সাংবাদিক। উল্লেখযােগ্য। গ্রন্থ গ্রহণ’, খােলা চিঠি, ‘নানা কথা ইত্যাদি।

অরবিন্দ ঘােষ :

অরবিন্দ ঘোষ-এর জন্ম ১৮৭২ খ্রিস্টাব্দের ১৫ আগস্ট এবং মৃত্যু ১৯৫০ খ্রিস্টাব্দের ৫ ডিসেম্বর। তিনি সন্ন্যাসী, দার্শনিক ও রাজনৈতিক নেতা হিসাবে পরিচিত। বিপ্লবমন্ত্রের দীক্ষাগুরু মহারাষ্ট্রের ঠাকুর সাহেব। আলিপুর বােমা মামলায় অভিযুক্ত হিসাবে কারাবরণ করেন। তার পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশ। তাঁর একটি আশ্রম আছে পণ্ডিচেরিতে। ওই আশ্রমটি স্থাপনে সাহায্য করেন ফরাসি মহিলা মাদাম পলরিশার।

কেয়া চক্রবর্তী:

(জন্ম ৫.৮.১৯৪২ কলকাতা এবং মৃত্যু ১২.৩.১৯৭৭)। তিনি প্রতিভাময়ী মঞ্চশিল্পী, নান্দিকার নাট্যগােষ্ঠীর একনিষ্ট অভিনেত্রী। তাঁর অভিনীত বিখ্যাত নাটক হল-চার অধ্যায়, ভালাে মানুষ, তিন পয়সার পালা ইত্যাদি।

অনুপকুমারঃ

(জন্ম ১৭ জুন ১৯৩০ এবং মৃত্যু ৩ সেপ্টেম্বর ১৯৯৮)। তিনি চলচ্চিত্রাভিনেতা ও নাট্যপরিচালক হিসাবে খ্যাত। তিনি কৌতুক অভিনেতা হিসাবে বেশি জনপ্রিয়। তাঁর প্রথম ছবি হালবাংলা। নাট্যাচার্য শিশির ভাদুড়ির আদর্শ শিষ্য। তাঁর আট বছর বয়সে অভিনয়ে হাতেখড়ি।

সন্তোষ দত্ত :

জন্ম ১৯২৫ সালে একং মৃত্যু ৫.২,১৯৮৮ তারিখে। তাঁর প্রথম অভিনয় সত্যজিৎ রায়ের ‘পরশ পাথর’ ছবিতে। তিনি চিত্রজগতে জয়ায়ূ নামে সর্বাধিক পরিচিতি লাভ করেন। তাঁর উল্লেখযােগ্য ছবি পরশ পাথর, ‘সােনার কেল্লা এবং ওগো বধূ সুন্দরী’।

রমেশচন্দ্র দত্ত :

জন্ম ১৩,৮.১৮৪৮ এবং মৃত্যু ৩০.১১.১৯০৯। তিনি খ্যাতনামা সাহিত্যিক, ঐতিহাসিক ও সিভিলিয়ন। প্রথম ভারতীয় জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, ‘দ্য পেজাস্ট্রি অব বেঙ্গল’, ইকনমিক হিস্ট্রি অব ব্রিটিশ ইন্ডিয়া তাঁর গবেষণামূলক গ্রন্থ। এছাড়া বঙ্গবিজেতা, মাধবী কঙ্কণ ইত্যাদি গ্রন্থও তাঁর রচনা।

শম্ভু মিত্রঃ

জন্ম ২২.৮.১৯১৫ এবং মৃত্যু ১৯.৫,১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দে। প্রখ্যাত নাট্যকার, পরিচালক ও অভিনেতা। ১৯৪৮ খ্রিস্টাব্দের ১ মে বহুরূপী নাটকের দল স্থাপন করেন। উলুখাগড়া ছেঁড়া তার “বিভাব, ‘চার অধ্যায়’, ‘দশচক্র’, ‘রক্তকরবী, ‘ডাকঘর’, ‘পুতুল খেলা ইত্যাদি নাটক পরিচালনা করেন। ১৯৭৮ খ্রিস্টাব্দে বহুরূপীর সঙ্গে তার বিচ্ছেদ হয়।

নীলমণি দাশ :

জন্ম ৩.৩.১৯১০ এবং মৃত্যু ১৭.৩.১৯৯১ খ্রিস্টাব্দে। ব্যায়ামবিদ হিসাবে জনপ্রিয়। নীলমণি দাশ আয়রনম্যান উপাধিতে সম্মানিত। তাঁর গুরু ছিলেন ডা, নারায়ণচন্দ্র দাশ।

নীতিন বসুঃ

জন্ম ২৬.৪.১৮৯৭ খ্রিস্টাব্দে এবং মৃত্যু ১৩.৪.১৯৮৬ খ্রিস্টাব্দে। প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক, বেহালাবাদক। দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারে সম্মানিত।

অর্ধেন্দুশেখর মুস্তাফিঃ

জন্ম ২৫ জানুয়ারি ১৮৫০ বাগবাজার কলকাতায় এবং মৃত্যু ৫ সেপ্টেম্বর ১৯০৯ খ্রিস্টাব্দে। তিনি শক্তিশালী অভিনেতা ও নাটকের শিক্ষক। তাঁর অভিনীত উল্লেখযােগ্য নাটক প্রফুল্ল, নীলদর্পণ, রিজিয়া ইত্যাদি।

ইন্দিরা দেবী চৌধুরাণী :

(জন্ম ২৯.১২.১৮৭৩, মৃত্যু ১৮.৮.১৯৬০)। সাহিত্যিক ও সংগীত শিল্পী। সম্পাদক হিসাবেও পরিচিত ছিলেন। দেশিকোত্তম, রবীন্দ্র পুরস্কার প্রাপক।

কার্তিক বসু :

(জন্ম ১৯০৬, মৃত্যু ৩.৭.১৯৮৪)। তিনি বাংলা ক্রিকেটের শিক্ষাগুরু হিসাবে জনপ্রিয়। তিনি দক্ষ ব্যাটসম্যান, ১৯৩৮-৩৯ সালের বাংলা রঞ্জি ট্রফি বিজয়ী হন।

সুপ্রভা সরকারঃ

জন্ম ২৫.৯.১৯১৯ এবং মৃত্যু ২৩.৯.১৯৮৯। তিনি প্রখ্যাত সংগীত শিল্পী। তাঁর গানের রেকর্ডের সংখ্যা পাঁচশাের মতাে। তিনি নেপথ্য গায়িকা হিসাবে জনপ্রিয়।

সৌম্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর :

সৌমেন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্ম ১৯০১ খ্রিস্টাব্দের অক্টোবর মাসে এবং মৃত্যু ১৯৭৪ খ্রিস্টাব্দের ২২ সেপ্টেম্বর বিপ্লবী কমিউনিস্ট আদর্শে বিশ্বাসী ; রবীন্দ্র সাহিত্য, শিল্প ও সংগীতের অনুরাগী। ১৯২৭ খ্রিস্টাব্দে ইউরােপ যান ও দীর্ঘদিন ব্রিটিশ ও জার্মান কারাগারে বন্দি ছিলেন। দি রেভলিউশনারি কমিউনিস্ট পার্টি অব ইন্ডিয়া দল গঠন তাঁর প্রধান কীর্তি। তাঁর বিখ্যাত রচনা-বিপ্লবী রাশিয়া।

সুকুমার রায় :

সুকুমার রায়-এর জন্ম ১৮৮৭ খ্রিস্টাব্দের ৩০ অক্টোবর এবং মৃত্যু ১৯২৩ খ্রিস্টাব্দের ১০ সেপ্টেম্বর। তিনি খ্যাতনামা সাহিত্যিক। শিশু ও কিশাের সাহিত্য তাঁর অবিস্মরণীয় কীর্তি। তাঁর উল্লেখযোগ্য রচনা আবােল-তাবােল’, ‘খাই খাই’, ‘হ য ব র ল, ‘পাগলা দাশু’, ‘অতীতের ছবি, লক্ষণের শক্তিশেল’।

রাজেন্দ্র দত্তঃ

(জন্ম ১৮১৮ এবং মৃত্যু ১৮৮৯ খ্রিস্টাব্দে) ভারতবর্ষে তিনিই প্রথম হােমিওপ্যাথি চিকিত্সার প্রচার করেন। কথিত আছে তার উপদেশে ডাঃ মহেন্দ্রলাল সরকার হােমিওপ্যাথি চিকিৎসার প্রতি আকৃষ্ট হন।

শরৎচন্দ্র বসুঃ

জন্ম ১৮৮৯ খ্রিস্টাব্দে ৭ সেপ্টেম্বর এবং মৃত্যু ১৯৫০ খ্রিস্টাব্দের ২০ ফেব্রুয়ারি। নেতাজি সুভাষচন্দ্রের অগ্রজ, আইনজীবী, সােস্যালিস্ট রিপাবলিকান পার্টির প্রতিষ্ঠাতা।

সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায়ঃ

তাঁর জন্ম ২৬.১১.১৮৯০ এবং মৃত্যু ২৯.৫.১৯৭৭ কলকাতায়। তিনি খ্যাতনামা ভাষাতত্ত্ববিদ ও অধ্যাপক। অরিজিন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অব দ্য বেঙ্গলি ল্যাঙ্গুয়েজ তাঁর বিখ্যাত গ্রন্থ। তাঁকে পদ্মভূষণ উপাধিতে সম্মানিত করা হয়।

সুধীন্দ্রনাথ দত্ত :

জন্ম ১৯০১ খ্রিস্টাব্দের ৩০ অক্টোবর। মৃত্যু ২৫ জানুয়ারি ১৯৬০ কলকাতা। রবীন্দ্রযুগের বিশিষ্ট কবি, সাংবাদিক ও সমালােচক। কাব্যগ্রন্থ—ক্রন্দসী, অর্কেস্ট্রা, তম্বী ইত্যাদি।

সুকান্ত ভট্টাচার্যঃ

জন্ম ১৫.৮.১৯২৬, মৃত্যু ১৩.৫.১৯৪৭ কলকাতা। মাত্র ২১ বছর বয়সে অকালে এই কবির মহাপ্রয়াণ ঘটে। তাঁর লেখা কাব্যগ্রন্থগুলির মধ্যে ‘ছাড়পত্র’, ‘ঘুম নেই, “মিঠেকড়া, অভিযান, ‘হরতাল’ বিখ্যাত।

বিকাশ রায় :

জন্ম ১৫ মে ১৯১৬ এবং মৃত্যু ১৬ এপ্রিল ১৯৮৭। প্রখ্যাত চলচ্চিত্র শিল্পী ও মঞ্চাভিনেতা। তার অভিনীত প্রথম ছবি অভিযাত্রী এবং শেষ অভিনয় নহবৎ নাটকে। উল্লেখযোেগ্য গ্রন্থ আমি’, ‘মনে পড়ে।

জ্যোর্তিময় বসুঃ

জন্ম ডিসেম্বর ১৯২০, মৃত্যু ১২.১.১৯৮২ কলকাতা। তিনি সংসদ সদস্য। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় সামরিক বাহিনীর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

অশােককুমার সরকারঃ

(জন্ম ৭.১০.১৯১২, মৃত্যু ১৭.২.১৯৮৩) কলকাতা। তিনি আনন্দবাজার পত্রিকার সম্পাদক এবং পদ্মভূষণ উপাধিতে বিভূষিত।

উত্তমকুমারঃ

(জন্ম ৩.৯.১৯২৬ এবং মৃত্যু ২৪.৭.১৯৮০) কলকাতায় বাংলা চলচ্চিত্রের মহানায়ক তাঁর অভিনীত প্রথম ছবি দৃষ্টিদান’ ১৯৪১ সালে রিলিজ হয়, নায়িকা সুচিত্রা সেন তার অন্যতম জুটি অবিসংবাদিত হয়ে আছে। তিনি পরিচালক হিসাবেও জনপ্রিয় ছিলেন।

কেশবচন্দ্র সেনঃ

(জন্ম ১৯.১১.১৮৩৮, মৃত্যু ৮.১.১৮৬৪) সমাজসংস্কারক, ব্রাক্ম বিদ্যালয় ও সঙ্গীত সভার প্রতিষ্ঠাতা। ১৮৫৭ খ্রিস্টাব্দে ব্রাহ্মসমাজে যােগদান ও ১৮৬১ খ্রিস্টাব্দে ইন্ডিয়ান মিরর পাক্ষিক পত্রিকার প্রকাশক। ১৮৬২ খ্রিস্টাব্দে কলকাতা কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন। তাঁরই অনুরােধে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভারতীয়দের বিবাহের ন্যূনতম বয়সসীমা ধার্য করে একটি আইন পাস হয়। তিনি প্রখ্যাত গ্রন্থকার হিসাবে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন।

উমেশ মজুমদার, দুঃখীরামঃ

(জন্ম ১৮৭৫, মৃত্যু ১৯২৯) কলকাতা। ফুটবল খেলােয়াড় হিসাবে বিখ্যাত। এরিয়ান ক্লাবের অন্যতম স্থপতি।

গুরুদাস বন্দ্যোপাধ্যায়ঃ

স্যার গুরুদাস বন্দ্যোপাধ্যায় ১৮৪৪ খ্রিস্টাব্দে ২৬ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন এবং মৃত্যু ১৯১৮ খ্রিস্টাব্দে ২ ডিসেম্বর। তিনি প্রখ্যাত সাহিত্যিক, বিচারপতি, অধ্যাপক। প্রথম ভারতীয় ভাইস চ্যান্সেলার ছিলেন (১৮৯০-৯২)।

বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্রঃ

জন্ম ১৯০৫ খ্রিস্টাব্দে এবং মৃত্যু ১৯৯১ খ্রিস্টাব্দের ৩ নভেম্বর। তিনি একাধারে বেতার শিল্পী, নাট্যকার, অভিনেতা, ভাষ্যকার, আবৃত্তিকার ও বাঁশিবাদক। বেতারে “মহিযাসুরমর্দিনী’- র স্তোত্রপাঠের জন্য প্রসিদ্ধ।

মানবেন্দ্র মুখােপাধ্যায়ঃ

জন্ম ১.৮.১৯২৯, মৃত্যু ১৯.১,১৯৯২ খ্রিস্টাব্দে। প্রখ্যাত সুরকার ও গায়ক। প্রথমে কীর্তনে হাতেখড়ি। পরে নজরুল গীতি, দ্বিজেন্দ্রগীতি, পল্লীগীতি, আধুনিক, রবীন্দ্রসংগীত, পুরতনী, সব ক্ষেত্রেই তিনি সমান পারদর্শী ছিলেন।

রাহুলদেব বর্মন :

জন্ম ২৭.১.১৯৩৯ এবং মৃত্যু ৪.১.১৯৯৪ খ্রিস্টাব্দে। বাংলা ও হিন্দি চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী ও পরিচালক। ছােটে নবাব’ তাঁর প্রথম সুরারােপিত ছবি।

দীনেশ দাসঃ

জন্ম ১৬.৯.১৯১৩, মৃত্যু ১৩.৩.১৯৮৫ কলকাতা। বিশিষ্ট কবি, সাহিত্যিক ও গ্রন্থাকার। নজরুল পুরস্কার ও রবীন্দ্র পুরস্কারে ভূষিত। তাঁর উল্লেখযােগ্য কাব্যগ্রন্থ ‘কবিতা, ‘রাম গেছে বনবাসে’, অসঙ্গতি ইত্যাদি।

তিমিরবরণ :

১৯০৪ খ্রিস্টাব্দে তাঁর জন্ম এবং ২৯.৩.১৯৮৭ খ্রিস্টাব্দে তাঁর মৃত্যু। তিনি বিশিষ্ট সরােজবাদক, সংগীত পরিচালক। ভারতীয় বৃন্দগানের অন্যতম পথপ্রদর্শক।

প্যারীচাঁদ মিত্রঃ

জন্ম ২২.৭.১৮১৪, মৃত্যু ২৩.১১.১৮৮৩। বাংলা নবজাগরণের অন্যতম নেতা। বাংলা, ফরাসি ও ইংরাজি ভাষায় দক্ষতা ছিল। তিনি বিভিন্ন পত্রিকাতে কাজ করেন।

তুলসী চক্রবর্তী :

জন্ম ১৮৯৯ এবং মৃত্যু ১৯৬১ সালের ১১ ডিসেম্বর। তিনি বিখ্যাত নাট্যকার ও অভিনেতা ছিলেন। তিনি কৌতুকাভিনেতা হিসাবে জনপ্রিয়, ছিলেন। তাঁর অভিনীত বিখ্যাত ছবির নাম পরশ পাথর’ ও সাড়ে চুয়াত্তর।

শুভঠাকুর (সুগেন্দ্রনাথ) :

জন্ম ৩.১.১৯১২ এবং মৃত্যু ১৭.৭.১৯৮৫ খ্রিস্টাব্দে। তিনি একাধারে চিত্রশিল্পী, কবি, পত্রিকা সম্পাদক, শিল্প সংগ্রাহক। তাঁর নিজের পরিবার বিখ্যাত ঠাকুর পরিবার। প্রচলিত সমাজব্যবস্থা, সাহিত্য ও চিত্রকলার বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘােষণা করেন। তাই তিনি বিদ্রোহী হিসাবে সমধিক প্রসিদ্ধ।

ট্যাগঃ জেনে নিন মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী, Download মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী, PDF মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী, 100+ মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী, মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী জেনে নিন, বিশিষ্ট ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী, মহান পরুষ ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী, গুরুত্বপূর্ণ মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী, বিভিন্ন পরীক্ষায় আসা মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী, সেরা মহান ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত জীবনী

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button