কৃষিকর্ম-শিক্ষা

শীত কালীন মরশুমে টবে ফুল চাষ

টবে ফুল চাষ: ফুল সকলের প্রিয়। ফুল গাছ চাষ করা অনেকে শখ। বাড়িতে ফুল চাষ করলে মন ভালো রাখার পাশাপাশি বাড়ির সৌন্দর্য ও বৃদ্ধি করে। অনেকে ফুল চাষ করার মন চাইলেও  সঠিক সময়ে সঠিক উপায়ে না জানার কারনে আর ফুল চাষ করা হয় না। সেইজন্য শীতকালে কী কী ফুল চাষ করা যায় এবং কী ভাবে টবে ফুল চাষ করা যায় তা আলোচনা করব। শীত মরশুমে যে ফুল চাষ করা হয় তা হল –  গোলাপ  , গাঁদা , চন্দ্রমল্লিকা, ডালিয়া, ক্যামেলিয়া, কসমস, সূর্যমুখী, কৃষ্ণকলি, প্যান্সি, গ্যাজানিয়া, জিনিয়া, পিটুনিয়া ইত্যাদি। 

টবে ফুল চাষ

এটিও পড়ুন – বাংলার একটি গ্রামের চিত্র প্রবন্ধ রচনা

টবে ডালিয়া চাষ

ডালিয়ার কয়েকটি শ্রেণী হ’ল শমপুন ডালিয়ার, বল ডালিয়ার, কোলারেট ডালিয়া প্রভৃতি। টবে এর চাষের জন্য প্রয়োজন-

টব – একটি ৮ সে মি টব ও একটি ২৫ সে মি টব।

সার— গোবর সার ও রাসায়নিক সার।

চাষের পদ্ধতি —ডালিয়ার চারা বীজ, মূল বা কাটিং-এর দ্বারা সম্পন্ন হতে পারে। তবে নার্সারি থেকে ছােট্ট টবে বসানাে মূল যুক্ত কাটিং নিয়ে আসাই ভাল। সেই কাটিং প্রথমে তিল পাতাসার, ১০ কেজি দো-আঁশ মাটি (১ বালতি), ১০ গ্রাম ম্যাগনেসিয়াম সালফেট, ২০ গ্রাম মিউরিয়েট অফ পটাশ, ৫০ গ্রাম ইউরিয়া, ১০০ গ্রাম সুপার ফসফেট-এর সার মাটি বসানাে ৮ সেমির টবে মাস খানেক রাখবেন। সার মাটিতে প্রয়ােগের আগে ৭ দিন তাকে ভিজে অবস্থায় ফেলে রাখতে হবে। টবের মাটি মূলের জালে আবদ্ধ হলে ২৫ সে. মি টবে চারাটা দিয়ে দেবেন। এই টবটি ২০ কেজি গােবর সার, ৪৫ কেজি দো-আঁশ মাটি, ১৫০০ গ্রাম ব্যালিমিল-এর মিশ্রণে ভর্তি থাকবে। পরিচর্যালােহার কনড়ইট কনডুইট পাইপ, প্লাস্টিক পাইপ শক্ত

টবে সূর্যমুখী চাষ

সূর্যমুখী টবে চাষ করা যায়।

টব – বড় আকারের টব।

মাটি—দোআঁশ মাটি।

সার – গােবর ও পাতা সার।

সার-  মাটি তৈরি গোবর, পাতা সার ও দোঁয়াশ মাটি মিশিয়ে সার তৈরী করুন।

পরিচর্যা—নিয়মিত জল দেবেন কিন্তু গােড়ায় জল না বসে। গাছ বড় হলে কাঠি দিয়ে বেঁধে দেবেন গাছ যাতে হেলে যায়। প্রয়ােজনে ক্যাকটাস সূর্যমুখী সুপার ফসফেট দেবেন।

টবে গাঁদা ফল চাষ

গাঁদা মরশুমী ফুল।

প্রজাতি—স্প্যানিশ ব্রোকেড, ডেন্টি মেরিয়েট্টা ইত্যাদি ফ্রেঞ্চ গাঁদা ও জুবিলি, ইনকা, ক্লাইম্যাক্স আফ্রিকান গাদা খুব জনপ্রিয়। যদি সেপ্টেম্বর চারা লাগানো হয়। তাে নভেম্বরের পরথেকে পরের বছরের মার্চ পর্যন্ত ফুল মিলবে। টবে এর চাষ করলে প্রয়ােজন –

টপ –  মাঝারি আকৃতির একটি টবে গােটা চারেক চারা লাগানাে যেতে পারে।

মাটি—দোআঁশ মাটি।

সার—গােবর সার ও রাসায়নিক সার।

সার মাটি তৈরীর পদ্ধতি – ১৫০০ গ্রাম ব্যালিমিল, ৪৫ কেজি দোআঁশ মাটি, ২০ কেজি গােবর সার মিশিয়ে নিয়ে সার মাটি হিসাবে

ব্যবহার করবেন।

কীট – উই এর শত্রু।

কীটনাশক–বছরে দু-বার গ্যামাক্সিন দিন।

চারা তৈরি- বীজ থেকে চারা তৈরী হয়। কেনা চাও বসাতে পারেন। চাষের সাধারণ নিয়মটবের নিকাশী ব্যবস্থা যেন ঠিক থাকে। দু সপ্তাহ বয়সের ফুল কেটে বাদ দিতে হবে।

সার প্রদান-  চারা বসানাের এক মাস পর থেকে দুই সপ্তাহ ছাড়া তেল সার দিতে হবে। ১০ কেজি জল, ১০০ গ্রাম ডি. এ. পি., ২০ গ্রাম মিউরিয়েট অফ পটাশ ও ১০ গ্রাম ম্যাগনেসিয়াম সালফেট তরল সার হিসাবে দিন।

Rose

টবে গােলাপ ফুল চাষ

গোলাপ ফুল বহু বর্ষ জীবি গুল্ম। টবে গোলাপ ফুল চাষের জন্য প্রয়ােজন-

টপ – পোড়া মাটির বড় টব (১৮ ইঞ্চি মতাে)।

মাটি—দোআঁশ মাটি।

সার—গোবর সার ও রাসায়নিক সার।
সার মাটি— ১০ কেজি এঁটেল মাটি (১ বালতি)।

৫০ কেজি দো-আঁশ মাটি (কিংবা কাদামাটি ও বালি), ১০ কেজি গােবর সার, ৫. কেজি পাতা,সার ১ কেজি ক্ষুর কুচি ও শিং, ১০০ গ্রাম সােরা, ২৫০ গ্রাম গুড়া হাড় দিয়ে মিশিয়ে ভিজে ভিজে অবস্থাতেই গাদা করে ২১ দিন রাখুন।

কীটনাশক— ক্যাটার পিলার, থ্রিপস ইত্যাদি কীট এই গাছের শত্রু। চারাগাছে পাতা গজাতে আরম্ভ হলে এক সপ্তাহ ছাড়া মেটাসিড, রােগার, মনােসিল কীটনাশক ছড়িয়ে দিতে হবে।

চাষের সাধারণ বিধি নিয়ম – টবের নিকাশী ব্যবস্থা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে তবেই সারমাটি ভরা উচিত। টবের মুড়ির কাছে ৪ সেমি মতাে জল দেওয়ার জন্য খালি রাখুন। চারাগাছ বসিয়ে দরকার বুঝে কদিন ছায়ায় বাখুন। ঝড় বা জোর বাতাস লাগতে দেবেন না, পলিথিন দিয়ে ঢেকে দেবেন। সকালের রােদ গােলাপ চারার পক্ষে উপকারী। তবে পাতা গজানাে আর হলে গাছকে রােদে পুরােপুরি ভাবে বের করবেন। আবহাওয়া শুষ্ক হলে রােত্ত জল দেবেন। শাখা শুকোতে শুরু করলে তা কেটে বাদ দিয়ে দেবেন।

সার প্রদান– অক্টোবর থেকে নভেম্বরের মধ্যে টবের উপরের দিক থেকে ৮ সেমি মতাে মাটি তুলে নিয়ে তার জায়গায় চাপান সার হিসাবে= ৭০ গ্রাম ইউরিয়া, ১০০ গ্রাম নাইট্রেট অফ পটাশ, ৩০০ গ্রাম সুপার ফসপেট, ৫০০ গ্রাম গুঁড়াে সর্ষের খােল, ৫০ কেজি গােবর সার প্রয়ােগ করুন। সাথে সাথেই সেচ দেবেন। যদি দেখেন যে আয়রণ, ম্যাগনেশিয়াম ক্যালসিয়াম এর অভাব ঘটছে, তখন ১০ কেজি জল, ১০ গ্রাম ম্যাগনেসিয়াম সালফেট, ২০ গ্রাম সালফেট অফ পটাশ, ২৫ গ্রাম ইউরিয়া ২০০ গ্রাম সর্ষেখােল। বা, ১০ কেজি জল, ১০ গ্রাম ম্যাগনেসিয়াম। সালফেট, ২০ গ্রাম সালফেট অফ পটাশ, ১০০ গ্রাম ডি. এ. পি. (সম্পূর্ণটা তরল সার) প্রয়ােগ করুন। অক্টোবর থেকে নভেম্বরের মধ্যে ১০ কেজি জল, ১২ গ্রাম করে পটাশিয়াম নাইট্রেট ও অ্যামােনিয়াম ফসফেট (সম্পূর্ণটা পাতার সার) ২/৩ বার প্রয়ােগ করুন।

ডাল ছাঁটাই – চাপান সার প্রয়ােগের সময় অর্থাৎ অক্টোবর-নভেম্বর নাগাদ ডাল ছেঁটে দেবেন। ছাটাই-এবং পরে ছত্রাক সংক্রমন থেকে বাঁচাতে লাগল চাউবাট্রিয়া (Chaubattia) পেন্ট।

ট্যাগঃ টবে ফুল চাষ , টবে ফুল চাষ পদ্ধতি,  জেনে নিন টবে ফুল চাষ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button