Monday, October 26, 2020
car techব্যবসা

গাড়ির ইন্সুরেন্স সম্পর্কিত প্রশ্ন ও তার সমাধান 1 & 3 PARTY INSURANCE

গাড়ির ইন্সুরেন্স

গাড়ির চালকের ড্রাইভিং ছাড়া  যেমন গাড়ি চালানো আইনত অপরাধ তেমনি গাড়ির ইন্সুরেন্স না থাকা বা ইন্সুরেন্স ভ্যালিড শেষ হয়ে গাড়ি চালানো তেমনি অপরাধ। তাই গাড়ি কেনার পর প্রতিটি গাড়ির বীমা করা (car insurance) এবং প্রত্যেক বছর তা রিন্যুউ করাও বাধ্যতামূলক। গাড়ীর বীমা করা থাকলে গাড়ির বা গাড়ির মালিকের, এমনকি তৃতীয় কোন ব্যক্তি গাড়ির দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হলে তা ক্ষতিপূরণ পাওয়া যায়।

গাড়ির ইন্সুরেন্স বা বীমা কী?

কোন কারণে গাড়ির কোন ক্ষতি হলে বা গাড়ির দ্বারা তৃতীয় পক্ষের কারো ক্ষতি হলে গাড়ির মালিককে / তৃতীয় পক্ষকে ইনস্যুরেন্স কোম্পানি আইন অনুযায়ী, যেই আর্থিক সহায়তার মাধ্যমে ক্ষতির দায় মিটিয়ে দেয়া হয় সেটিই হচ্ছে মোটর ইনস্যুরেন্স (মোটর বীমা)। তৃতীয় পক্ষের (থার্ড পার্টি) মোটর ইনস্যুরেন্স করা সকল গাড়ি মালিকের জন্য বিধিবদ্ধ আবশ্যক। কারন, সার্বজনিক কোন স্থানে গাড়ি ব্যবহার করার ফলে যদি তৃতীয় পক্ষের কোন মানুষের ক্ষতি সাধন হয়, তাহলে সেজন্য গাড়ির মালিকই দায়ী। তাই সার্বজনিক স্থানে মোটর বীমা ছাড়া গাড়ি চালানো আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

গাড়ির ইনস্যুরেন্স পলিসির সাধারণত দুই প্রকার-

  • প্রথম পক্ষ বা কম্প্রিহেনসিভ বীমা পলিসি (MOTOR COMPREHENSIVE)।
  • তৃতীয় পক্ষ বীমা পলিসি (MOTOR THIRD PARTY)।

প্রথম পক্ষ বা কম্প্রিহেনসিভ বীমা (COMPREHENSIVE)

কম্প্রিহেনসিভ বীমা (First Party) পলিসিতে গাড়ির মালিককে ক্ষতিপূরণ দিয়ে থাকে বিমা কোম্পানি। এই পলিসির আওতায় কোন গাড়ি যদি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে থাকে, তাহলে দুর্ঘটনা থেকে গাড়ির মালিকের কোন ক্ষতি হলে তার ক্ষতিপূরণ দিয়ে থাকে ইনস্যুরেন্স কোম্পানিগুলো। এছাড়া যেকোন প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে গাড়ির ক্ষতি হলেও প্রথম পক্ষের আওতাধীন গাড়ির ক্ষতি হলে, গাড়ির ক্ষতির জন্য গাড়ির মালিককে ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়ে থাকে। এই পলিসির প্রিমিয়াম রেট তৃতীয় পক্ষ বীমা পলিসি (THIRD PARTY) এর থেকে তুলনামূলক বেশি।

এটিও পড়ুন – ব্লগিং করে অনলাইন আয় করার সহজ টিপস 

তৃতীয় পক্ষ বীমা পলিসি (THIRD PARTY)

কোন গাড়ি যদি কেবল মাত্র তৃতীয়পক্ষ বীমা পলিসির আওতাধীন হয়, তাহলে সেই গাড়ি যদি কোন কারণে বা দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয় তাহলে গাড়ির ক্ষতির জন্য গাড়ির মালিককে কোন ধরণের ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়না। গাড়ির মাধ্যমে তৃতীয় কোন ব্যাক্তির ক্ষতিসাধন হয়ে থাকে কেবল সেই ক্ষতির দায়ভার নেবে ইনস্যুরেন্স কোম্পানি।

গাড়ির ইন্সুরেন্স সম্পর্কিত প্রশ্ন ও তার সমাধান

কাস্টমারের প্রশ্ন– ইন্সুরেন্স করতে গিয়ে কাস্টমার যে প্রশ্ন গুলি করে, যখন Claim করতে হবে তখন কিন্তু তোমাকেই সমস্ত কিছু করতে হবে। এবং কোনো রকম সমস্যা হলে তোমাকেই সমাধান করতে হবে। Claim করতে কোনো রকম সমস্যা হবে না তো ? যদি কিছু সমস্যা হয় তাহলে আপনি সমাধান করবেন তো ?? এ রকম অনেক প্রশ্ন।

উত্তরঃ এই ধরণের প্রশ্নের সম্মুখীন হওয়া টা গ্রামের মধ্যে একদম স্বাভাবিক। তবে এর উত্তর টাও সঠিক ভাবে দিলে কোনো কাস্টমারই আপনাকে খারাপ ভাববে না।

কথা গুলো সমস্ত কোম্পানির পলিসির জন্য প্রযোজ্য।

  • প্রথমতঃ আমরা কোনোদিন ই কাস্টমার কে ভুল বা মিথ্যে বলে পলিসি বানাবো না। যেটা সঠিক সেটাই বলবো।
  • আর আমরা বুঝিয়ে বলবো। মোটর ক্লেম দু রকমের হতে পারে। থার্ডপার্টি, মানে গাড়ি যাকে ধাক্কা মারছে তার কভারেজ। আর গাড়ির বা মালিকের কোনো ক্ষতি হলে তার ক্লেম।
  • থার্ডপার্টি ক্লেম এর ক্ষেত্রে আমাদের কারোর ই কিছু করার নেই। পুরোটাই, কোর্ট আর উকিলের সহায়তায় হবে। সেখানে ভি এল ই (VLE) বন্ধু বা অন্য দের ও কোনো ভূমিকা নেই।
  • আর গাড়ির কোনো ক্ষতি হলে, দু ভাবে ক্লেম লজ করা যায়। প্লে স্টোরে এর অ্যাপ আছে, যেমন রিলাইন্সের এর ক্ষেত্রে এপ্লিকেশন নাম – Selfi Reliance. এই এপ্লিকেশনের এর মাধ্যমে ক্লেম লজ করা যায় খুবই সহজ পদ্ধতিতে। আর ফোনের মাধ্যমে ডিটেলস জানিয়ে।
  • সাধারণত এটা যার গাড়ির ক্লেম হয়েছে তার ই করা উচিত। কারণ OTP এবং ক্লেম নম্বর আসবে একমাত্র ওই কাস্টমারের পলিসি তে মেনশন করা ফোন নম্বর এ।
  • একবার ক্লেম লজ হলে, আর কারোর ই প্রয়োজন হবে না। আমাদের সু শিক্ষিত পারদর্শী ক্লেম ম্যানেজার কাস্টমার কে স্টেপ বাই স্টেপ গাইড করে দেবে।
  • ক্লেম এর ব্যাপারে কিছু জিনিস অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে। যেমন-
    1. ড্রাইভিং লাইসেন্স সঠিক থাকতে হবে।
    2. গাড়ির সমস্ত কাগজপত্র ঠিক থাকতে হবে।
    3. নেশাগ্রস্ত অবস্থায় গাড়ির একসিডেন্ট এর ক্লেম পাওয়া সহজ নয়।
    4. সঠিক পলিসি থাকা বাধ্যতামূলক।
    5. ক্লেম এর ক্ষেত্রে পুরো টাকা কোনোদিন পাওয়া যায় না। IRDA গাইডলাইন্স অনুযায়ী সমস্ত পার্টসে ও গাড়ির বয়স অনুযায়ী কমে যায়।

এখন আপনার প্রশ্ন অনুযায়ী কোনো সমস্যা হলে , কাস্টমার বলেছে, সমাধান আপনাকেই করতে হবে সেক্ষেত্রে আপনি তাকে অবশ্যই সাহায্য করবেন। ব্যবস্যা করতে গেলে এইটুকু করতেই হবে। যদি ক্লেম জেনুইন হয় আর ডকুমেন্টস সব ঠিক থাকে আপনি নিশ্চিন্তে পলিসি করতে পারেন।

ট্যাগ: গাড়ির ইন্সুরেন্স সম্পর্কিত যাবতীয় প্রশ্ন ও তার সমাধান, কী ভাবে গাড়ির ইন্সুরেন্স  করবেন? গাড়ির ইন্সুরেন্স কত প্রকার ও কী কী?

Leave a Response