জানা অজানাজি কেস্বাস্থ্য

নিজেকে সবসময় সুন্দর রাখতে চান? রূপচর্চার গুরুত্বপুর্ন পরামর্শ

শরীর শুকিয়ে গেলেঃ প্রতিদিন চালতার তরকারী করে খেতে হবে।
শরীর হালকা হয়ে গেলেঃ অশ্বগন্ধা, শ্বেতবেড়েলা ও মধু গরম জলে দিয়ে একবার খাওয়া।
অতিরিক্ত ঘামাচি হলেঃ মটর ডালের বেসনের সাথে এক চামচ সাদা চন্দন, দুই চামচ মুলতানি মাটি গোলাপ জলে গুলে গায়ে মাখলে ঘামাচি হবে না।
হাত পা ফাটায়ঃ পুঁই শাক শিদ্ধ করে সেই জলে দশ মিনিট হাত বা পা ডুবিয়ে রাখলে ফাটা ঠিক হবে।
পা ফাটলে হাটা না গেলেঃ আম ও বট আঠা সমানভাবে মিশিয়ে ফাটা জায়গায় পা ফাটা বন্ধ হবে।
ফর্সা গায়ের রঙ পেতেঃ সমপরিমান বকুল ছাল, দারু হরিদ্রা, তেজপাতা অর্জুন, নিশিন্দা জলে ফুটিয়ে উষ্ণ অবস্থায় গায়ে মেখে এক ঘণ্টা পরে স্নান করতে হবে।
রঙ উজ্জ্বল করতেঃ আধ চামচ করে বাসক পাতা, শঙ্খ গুঁড়ো ও অশোক এক সাথে গায়ে মেখে আধঘণ্টা পরে স্নান করতে হবে।
ঠোঁটের গঠন ঠিক করতেঃ ভালো মধুর সাথে লেবুর রস মিসিয়ে ঠোঁটে লাগাতে হবে।
মুখের ত্বক উজ্জ্বল করতেঃ একাজে গোলাপের পাপড়ির জুড়ি নেই। প্রতি দিন গোলাপের পাপড়ি দুধের সর দিয়ে বেটে নিয়ে নিয়মিত মুখে মাখতে হবে।প্রতিদিন সকালে মুখে দই লাগিয়ে কিছুক্ষণ মালিশ করে ২০-২৫ মিনিট মুখ ধুয়ে ফেললেই মুখের উজ্জ্বলতা বাড়বে। আধ চামচ করে অর্জুন, বকুল, বট গরম জলদিয়ে মেখে মধু দিয়ে খেতে হবে।বাসক পাতা, অশোক, শঙ্খ গুঁড়ো আধ চামচ করে মুখে মাখলে উজ্জ্বলতা বারে।
পদ্ম পাপড়ি ১০-১৫ টা ও দুটি কদম পাতা বেটে মুখে লাগালে মুখের উজ্জ্বলতা বাড়বে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button