কম্পিউটারকম্পিউটার শিক্ষার আসর

কীবোর্ড কী? এর ব্যবহার এবং কার্যকারীতা

কীবাের্ড (Keyboard): কীবাের্ড কম্পিউটারের একটি প্রধান ইনপুট ডিভাইস। কীবাের্ড এর দ্বারা কম্পিউটারে বিভিন্ন তথ্য বা নির্দেশ পাঠানাে যায়। প্রত্যেকটি কী বোর্ডের কী এর সংখ্যা এক-একরকম হয়। তবে সাধারণত কীবাের্ড এ ১০৫ থেকে ১১২টি কী থাকে। কীবোর্ডটি দেখতে অনেকটা টাইপরাইটারের মতাে এবং এর কী-গুলিও টাইপ রাইটারের মতাে সাজানাে থাকে। তবে কীবাের্ড অনেক অতিরিক্ত কী থাকে যেগুলি কম্পিউটারেকে বিশেষ বিশেষ নির্দেশ দিতে ব্যবহার করা হয়।

কীবোর্ড কী? এর ব্যবহার এবং কার্যকারীতা

কীবোর্ড এর বৈশিষ্ট্যঃ 

  • কম্পিউটারে ডেটা প্রদান করার জন্য কীবোর্ড ব্যবহার করা হয়। তাই একে ইনপুট ডিভাইস বলা হয়।
  • এটি আয়তাকার, চ্যাপটা আকৃতির। এতে অনেকগুলি বাটন রয়েছে যেগুলিকে ইংরেজিতে ‘KEY বলা হয়।
  • একটি কীবাের্ড এর মধ্যে রয়েছে, লেটার-কী”, “নিউমেরিককী, স্পেশ্যাল ক্যারেক্টার-কী এবং ‘কন্ট্রোল-কী।

কীবোর্ড কত প্রকার ও কী কী? 

কম্পিউটার কীবাের্ড এর কার্যকারিতা অনুযায়ী এই কীগুলিকে ৪ ভাগে ভাগ করা যায় – ১) অ্যালফা নিউমেরিক কী ২) ফাংশান কী (F1-F12) ৩) কারসার মুভমেন্ট কী এবং ৪) স্পেশাল ক্যারেক্টার কী

অ্যালফা নিউমেরিক কীঃ

এই কী গুলির দ্বারা আমরা ইংরেজী হরফ  (A-Z )ও 0-9 সংখ্যাগুলি টাইপ করতে পারি। যেমন : ROLL NO, BO003 টাইপ করতে এই কী ব্যবহার করা হয়।

ফাংশান কী (F1-F12)

বিভিন্ন সফটওয়্যারে এই কীগুলির প্রয়োগ করে বিভিন্ন প্রকার কাজ করা যায়। যেহেতু এরা সফটওয়্যার নির্ভর তাই এদের সফট কী বলা যেমন : FI কী সাধারণত Help এর জন্য। আবার F5 কী Windows Memory-কে Refresh করার জন্য ব্যবহৃত হয়।

কারসার মুভমেন্ট কী

রাইট ও লেফট অ্যারো এবং আপ ও ভাউন আরো এই চারটি কী-কে একত্রে মুভমেন্ট কী বলা হয়। এই কীগুলি দ্বারা ডান-বাম দিক, উপরে-নিচে কারসারকে মুভমেন্ট করা যায়।

স্পেশাল ক্যারেক্টার কী

কীবাের্ড এর কতকগুলি কী বিশেষ কাজের জন্য ব্যবহৃত হয়। তাই এই কী-গুলিকে স্পেশাল কী বলে। স্পেশাল কী ক্যারেক্টার কী-এর অক্ষরগুলি হল :

গাণিতিক চিহ্ন – [ +, – , = ,*,/ ,%]

যতি চিহ্ন – [.; ?’ ‘:” !.]

অন্যান্য বিশেষ চিহ্ন – [@ # $ ^ & () ইত্যাদি]

কীবোর্ড এর স্পেশাল কী-গুলির নাম ও তাদের কাজ সম্বন্ধে বর্ণনা করা হল

ক্যাপস লক [Caps Lock] : ক্যাপস লক কী ব্যবহার করে বড় হাতের অক্ষর টাইপ করতে পারি। যেমন COMPUTER, আবার এই কী অফ থাকলে ছােট হাতের অক্ষর টাইপ করা যায়। যেমন computer.

শিফট [Shift]: শিফট [Shift] কী ব্যবহার করে বড় হাতের অক্ষর ও কী-বাের্ডের উপরের অক্ষরগুলি টাইপ করা যায়। যেমন— A, B, C…. @, #, $, ইত্যাদি। এছাড়াও বিভিন্ন সময় সিলেকশনের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়।

ডিলিট [Delete] : ডিলিট [Delete] কী ব্যবহার করে যে-কোনাে অক্ষর মােছা যায়।

এসকেপ [Escape] : এসকেপ [Escape] কী ব্যবহার করে কোনাে কাজকে বাতিল বা Cancel করা যায়।

ট্যাব [Tab] : ট্যাব [Tab] কী ব্যবহার করে কারসারকে নির্দিষ্ট অক্ষর পর্যন্ত জাম্প করানাে বা নির্দিষ্ট দূরত্বে সরানাে যায়।

কন্ট্রোল [Ctrl] : কন্ট্রোল [Ctrl] কী অন্য কী-এর সঙ্গে বিশেষ কাজের জন্য ব্যবহার করা হয়। যেমন- Ctrl+S দ্বারা ফাইলকে সেভ করা হয়। Ctrl কী চেপে নিদৃষ্ট জায়গা সিলেক্ট করা যায়।

অল্টার [Alt] :অল্টার [Alt] কী অন্য কী-এর সঙ্গে বিশেষ অপারেশনের জন্য ব্যবহৃত হয়। একত্রে প্রেস করে কম্পিউটারকে পুনরায় স্টার্ট করা যায়।

স্পেসবার [ Space bar] : স্পেসবার [ Space bar] কী দুটি অক্ষর বা শব্দের মাঝে ব্যবধান সৃষ্টি করতে ব্যবহৃত হয়। যেমন- Agomnoni Barta |

এন্টার [Enter]: এন্টার [Enter] কী কারসারকে পরবর্তী লাইনে যেতে অথবা কোনাে কমান্ড লিখে কার্যকর করতে ব্যবহৃত হয়।

ব্যাকস্পেস [Back Space] : ব্যাকস্পেস [Back Space] কী ব্যবহার করে ডান দিক থেকে বামদিকের অক্ষরগুলি পরপর মুছে ফেলা যায়।

নামলক [Num Lock]: নামলক [Num Lock] কী ব্যবহার করে শূন্য থেকে নয় (0-9) পর্যন্ত সংখ্যাকে টাইপ করা যায়। এই কী অফ থাকলে আমরা নিচের ফাংশানগুলিকে কাজ করাতে পারি। যেমন লেফট অ্যারাে (), রাইট অ্যারাে () ইত্যাদি।

হােম [Home]: হােম [Home] কী ব্যবহার করে আমরা কারসারকে লাইনের প্রথম অক্ষরে নিয়ে যেতে পারি।

এন্ড [End]: এন্ড [End] কী ব্যবহার করে আমরা কারসারকে কোনাে লাইনের শেষ অক্ষরে নিয়ে যেতে পারি।

ইনসার্ট [Insert]: ইনসার্ট [Insert] কী ব্যবহার করে আমরা দুটি অক্ষরের মাঝে নতুন কোনাে অক্ষর ঢােকাতে পারি।

প্রিন্ট স্ক্রীন [Print Scr] : প্রিন্ট স্ক্রীন [Print Scr] কী ব্যবহার করে মনিটরে দৃশ্যমান অংশটি সরাসরি প্রিন্টারে ছাপতে পারি।

পস/ব্রেক [Pause] : এই কী ব্যবহার করে কম্পিউটারের যে-কোনাে কাজকে হঠাৎ থামিয়ে দিতে পারি।

এটিও পড়ুন – এমএস এক্সেল কী-বোর্ডের সকল শটকার্ট সমূহ – MS Excel Short Cut Keys

পেজ আপ (Page Up) : পেজ আপ (Page Up) কী ব্যবহার করে কার্সরকে উপরের দিকে উঠানো হয়।

পেজ ডাউন (Page Down) : পেজ ডাউন (Page Down) কী ব্যবহার করে কার্সরকে নিচের দিকে নামানো হয়।

মাল্টিমিডিয়া কী

এছাড়া মাল্টিমিডিয়া কীবোর্ড এ আরও ৪ টি কী থাকেঃ

  • Stand by Mood: এই কী চেপে রাখলে কম্পিউটার চালু থাকবে কিন্তু মনিটর বন্ধ হয়ে যাবে।
  • Mail key : এই কী চেপে আউটলুক এক্সপ্রেস চালু হয় এবং তা দিয়ে মেইল পাঠানো যায়। তবে ইন্টারনেট চালু থাকতে হবে।
  • Web key : এই কী ব্যবহার করে সরাসরি ওয়েব ব্রাউজার ওপেন করা যায়। এবং ইন্টারনেট ব্রাউজ করা যায়।
  • Start Menu key: এই কী চেপে ষ্ট্যাট মেনু ওপেন করা যায় এবং প্রয়োজনীয় কমান্ড করা যায়।

তথ্যসূত্র – উকিপিডিয়া

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button