ইউটিউবারভাবসম্প্রসারণজানা অজানাস্বাস্থ্য

বিভিন্ন রোগে টোটকা চিকিৎসা – জানলে কাজে লাগবেই

টোটকাআমাদের চারপাশে যে সকল উদ্ভিদ দেখতে পাচ্ছি, তার প্রত্যেক্তিরই কিছু না কিছু ওষধি গুন আছে। নিম্নে কয়েকটি বিভিন্ন রোগে টোটকা এবং আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা সম্পর্কে আলোচনা করা হল।

You disposal strongly quitting them settling.

ম্যালেরিয়া

চায়ের কাপের আধ কাপ শিউলি পাতার রস এবং এক চামচ মধু মিশিয়ে খেতে হবে সকালে ও সন্ধ্যায় পর পর ১৫ দিন।

অর্শ

একটা জলপদ্ম পাতার অর্ধেক বেটে গরম ভাতের সঙ্গে খেলে অর্শের রক্ত পড়া বন্ধ হয়।

পোড়া

পুরানো তেঁতুল ভালো করে জলে গুলে ঐ জল লাগালে ফোস্কা পড়ে না ও ঘা হয় না।

ঘামাচি

শঙ্খের গুড়ো মাখলে ঘামাচি মরে যায়। তেজপাতা বেটে গায়ে মেখে আধ ঘণ্টা রেখে তারপর ভালো করে গা রগড়ে স্নান করলে ঘামাচি মরে যায়, ঘাম কম হয়, গা পরিষ্কার থাকে।

রক্ত আমাশয়

২০ গ্রাম মত তেলাকুচা পাতার রস এবং ৫ গ্রাম মিছিরি একত্রে খেতে হবে সকালে খালি পেটে পর পর ২/৩ দিন।

পাতলা পায়খানা

আধ কাপ পাথরকুঁচি পাতার রস ও একটু লবণ মিশিয়ে দু’দিন খেতে হবে দিনে দুই থেকে তিন বার।

বাত

বড় এলাচের গুড়ো, আধ চামচ পরিমাণ মধু সহ খেতে হবে রোজ একবার করে । এক মাস ধরে।

মেদ

২ গ্রাম পরিমাণ সাদা তিল বেটে গরম ভাতের সঙ্গে রোজ একবার করে ২১ দিন খেতে হবে।

হাঁপানি

তিন থেকে চার কোয়া রসুন, খোসা ছাড়িয়ে রাতে টক দই মেখে রাখুন। সকালবেলা জলখাবার খাওয়ার পর উক্ত দইসহ রসুন ভালো করে বেটে ১ কাপ গরম দুধে দিয়ে ১ মাস খান।

হটাৎ বমি

১ চামচ পেঁয়াজের রস খেতে হবে। ১০ মিনিটে না কমলে আরও একবার ১ চামচ খেতে হবে।

পরবর্তীতে এরকম আরও হাজারো রোগের টোটকা আলোচনা করা হবে ততক্ষণে সঙ্গে থাকুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button