পত্র রচনা

বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষকের অবসর গ্রহণ উপলক্ষে একটি মানপত্র রচনা কর।

তোমার বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষকের বিদায় গ্রহণ উপলক্ষে একটি মানপত্র রচনা কর।

তোমার বিদ্যালয়ের বা মহাবিদ্যালয়ের একজন শিক্ষকের বিদায় অথবা অবসর গ্রহণ উপলক্ষে একটি মানপত্র রচনা কর। অথবা কিভাবে লিখবেন তোমার বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষকের অবসর গ্রহণ উপলক্ষে একটি মানপত্র রচনা কর। অথবা তোমার বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষকের বিদায় গ্রহণ উপলক্ষে একটি মানপত্র রচনা কর। [১০০০+ ইংরেজি প্রবন্ধ রচনা, চিঠি ও অনুচ্ছেদ রচনা এখানে  ]

মানপত্র রচনা

হে শ্রদ্ধেয়!

তুমি আজ আমাদের নিকট হইতে বিদায় গ্রহণ করিতেছ, এই চিন্তা আমাদের মনে অপরিসীম বেদনার ছায়াপাত করিয়াছে। ত্রিশ বৎসরকাল অদম্য উৎসাহের সহিত শিক্ষাদানে ব্রতী থাকার পর তুমি পরিণত বয়সে কর্ম হইতে বিদায় লইতেছ—ইহাতে আমাদের বলিবার কিছুই নাই; কিন্তু তোমাকে আজ হারাইতে বসিয়াছি। ইহা স্মরণ করিয়া কিছুতেই আমরা অশ্রুসংবরণ করিতে পারিতেছি না, আমরা বিষাদময় হৃদয়ে আজ এখানে সমবেত হইয়াছি। আজ শুধু আমাদিগকে নহে তুমি তোমার সুদীর্ঘ কর্মজীবনে অগণিত ছাত্রকে জ্ঞান বিতরণ করিয়াছ; আমরা এজন্য তোমার নিকট ঋণী। তোমার অসংখ্য ছাত্র আজ দেশ-বিদেশে ছড়াইয়া পড়িয়াছে। আমরা তোমার নবীনতম শিষ্য—তোমার পুরাতন ও নবীন সকল ছাত্রের পক্ষ হইতে আজ তোমাকে অভিনন্দন জানাইতেছি।

হে নরোত্তম!

ইহা আমাদের অশেষ সৌভাগ্যের বিষয় যে, আমরা শিক্ষা জীবনের প্রথমেই তোমার ন্যায় পূতচরিত্র শিক্ষাদান দক্ষ শিক্ষকের পদপ্রান্তে বসিয়া অধ্যয়নের সুযোগ লাভ করিতে পারিয়াছি। তোমার বিদায়ক্ষণে আজ তাই নানা কথা স্মরণ করিয়া বিচলিত ও ব্যথিত হইয়া উঠিয়াছি। স্কুলে কোন অবস্থাতেই আমরা তোমার ধৈর্যচ্যুতি দেখি নাই। বিদ্যাগৃহে যখন পুস্তকের পাঠ্য বিষয় আয়ত্ত করিতে অসমর্থ হইয়াছি তখনই তুমি হাসিমুখে অসীম ধৈর্যের সহিত বিচিত্র প্রণালীতে পুস্তকের পাঠ্য সহজ সরল করিয়া বুঝাইয়া দিয়াছ। আবার বিদ্যালয়ের বাহিরে যখন আমরা অসংযত উচ্ছ্বাসে শৃঙ্খলহীন হইয়া পড়িয়াছি, তখন তুমি ক্রোধপরবশ না হইযা যুক্তি ও অনুযোগের দ্বারা নিজের পুত্রের মতো আমাদিগকে শিষ্টাচারের গণ্ডির মধ্যে আনিয়াছ। অন্যায়ের প্রতি তোমার ছিল কঠোর আক্রোেশ, কিন্তু অপরাধীর প্রতি তোমার করণার অন্ত ছিল না।

আজ মনে পড়িতেছে, আমরা অনেক সময় অবিমৃষ্যকারিতা দ্বারা তোমার মনে ব্যথা দিয়াছি। তোমার নিকট হইতে যে বিপুল দান আমরা প্রতিনিয়ত গ্রহণ করিয়াছি তজ্জন্য তোমার নিকট কৃতজ্ঞতার অন্ত নাই। আজ তোমার বিদায়ক্ষণে আমাদের অজস্র ত্রুটি-বিচ্যুতির কথা স্মরণ করিয়া আমরা নিরতিশয় লজ্জিত হইতেছি। কুণ্ঠিতচিত্তে প্রার্থনা করিতেছি যে, তোমার স্বভাবসুলভ ঔদার্যের দ্বারা তুমি আমাদের অজ্ঞতাকৃত অপরাধ মার্জনা করিয়া দিও।

তুমি আজ বিদ্যালয়/মহাবিদ্যালয় হইতে অবসর গ্রহণ করিতেছ; কিন্তু ইহা নিশ্চিত যে, এই বিদ্যালয়/মহাবিদ্যালয় হইতে তুমি সকল সম্বন্ধ বিচ্ছিন্ন করিবে না, পরোক্ষভাবে ইহা তোমার জ্ঞান ও অভিজ্ঞতার সাহায্য লাভ করিবে। আমরা আশা করি, দূরে চলিয়া গেলেও তুমি আমাদিগকে তোমার স্নেহ হইতে একেবারে বঞ্চিত করিবে না, আমাদের কথা স্মরণ রাখিয়া আমাদিগকে চরিতার্থ করিবে। তুমি আমাদের হৃদয়ে যে আসন পাতিয়া বসিয়া আছ তাহাতে তোমার স্মৃতিপ্রদীপ চিরদিন অম্লান হইয়া বিরাজ করিবে। আল্লাহর নিকট প্রার্থনা করি, তোমার জীবন শান্তিময় ও নিরাময় হউক।

ভক্তি-অবনত

(বিদ্যালয়ের নাম) বিদ্যালয়ের/মহাবিদ্যালয়ের ছাত্রবৃন্দ।

এটিও পড়ুন- ছাত্রসমাজের সামাজিক দায়িত্ব ও কর্তব্য রচনা

ট্যাগঃ মানপত্র রচনা লেখার নিয়ম? জেনে নিন মানপত্র রচনা লেখার নিয়ম।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button